পিছু হটলেন মুলায়ম, দলে ফেরালেন অখিলেশ, রামগোপালকে

0
223

নিউজ ডেস্ক : ২৪ ঘণ্টা কাটার আগেই নিজের হাতে যবনিকা নামিয়ে সমাপ্তি ঘোষণা করলেন গোটা নাটকের ৷ যাবতীয় দ্বন্দ্ব মিটিয়ে দলে ফেরালেন ছেলে অখিলেশ যাদবকে ৷ সেইসঙ্গে তুতো ভাই রামগোপাল যাদবকেও ফিরিয়ে নিলেন সমাজবাদী পার্টিতে। নিজ বাসভবনে দীর্ঘ বৈঠকের পরেই অখিলেশ যাদব এবং রামগোপালের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নিলেন মুলায়ম সিং যাদব ৷

imagesছেলের সঙ্গে সংঘাতে নেমে শেষ পর্যন্ত পিছু হটতে হল মুলায়ম সিংহ যাদবকে। তাঁর ঘোষণা করা প্রার্থীতালিকা না মেনে পাল্টা প্রার্থী তালিকা দেওয়ায় গতকাল ছেলে অখিলেশ সিংহ যাদব ও দলের সাধারণ সম্পাদক রামগোপাল যাদবকে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে ৬ বছরের দল থেকে সমাজবাদী পার্টি (সপা) থেকে বহিষ্কার করেন মুলায়ম। কিন্তু ২৪ ঘণ্টা না যেতেই দুজনের বহিষ্কারের ঘোষণা প্রত্যাহার করে নিলেন তিনি।

বাবা, ছেলের পারিবারিক বিবাদ গতকাল চরম মোড় নিয়েছিল। অখিলেশ কী করবেন, সেদিকেই নজর ছিল রাজনৈতিক মহলের। দুজনের বিরোধে শুরু থেকেই মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় নামা আজম খান এদিন ফের সক্রিয় হয়ে ওঠেন। তিনি অখিলেশকে নিয়ে মুলায়মের বাসভবনে হাজির হন সকালে। ঘণ্টাখানেকের বেশি তাঁকে মাঝখানে রেখে কথা হয় মুলায়ম, অখিলেশের। তারপরই অখিলেশ, রামগোপালের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত তুলে নেন মুলায়ম।

তার আগে এদিন সকালে ১৮৯ জন বিধায়ককে সঙ্গে নিয়ে বৈঠকে বসেন অখিলেশ যাদব ৷ বৈঠকে ছিলেন বিধান পরিষদের ৩০ সদস্যও ৷ বৈঠকটি হয়েছিল কার্যত দু’টি বিষয়কে মাথায় রেখে ৷ প্রথমত, সরকার ভেঙে পড়ায় যদি রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হয় তাহলে কি করণীয় ৷ দ্বিতীয়ত, সংখ্যাগরিষ্ঠ বিধায়কদের নিয়ে বৈঠকের মাধ্যমে সমাজবাদী পার্টি তথা মুলায়ম যাদবকে একটা কড়া বার্তা দেওয়া ৷

রাজনৈতিক মহলের একাংশের ব্যাখ্যা, বিগত পাঁচ বছরে দক্ষতার সঙ্গে প্রশাসন চালিয়েছেন অখিলেশ যাদব ৷ মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার আগে যে ‘গুণ্ডাগিরি’ বন্ধের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা পুরোপুরি বন্ধ না হলেও অনেকটাই কমিয়ে এনেছিলেন ৷ দুঁদে রাজনীতিবিদ মুলায়মকে অনেকটাই ছাপিয়ে গিয়েছিলেন তিনি ৷ ফলে দিন যত এগিয়েছে তাঁর গোষ্ঠীতেই ভিড় বাড়িয়েছেন দলের অধিকাংশ বিধায়করা ৷ ফলে প্রশ্ন উঠছে তাহলে কি ক্ষমতা হারানোর ভয়েই বহিষ্কারের নির্দেশ প্রত্যাহার করে নিলেন মুলায়ম? উত্তরটা রইল যাদবকূল আর সপা’র অন্দরেই।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY