কুলভূষণ শুনানিতে আন্তর্জাতিক আদালতে অ্যাডভান্টেজ ভারত

0
54

Yadavনিউজ ডেস্ক : শুনানির প্রথম দিনেই পাকিস্তানের মুখ পুড়ল দ্য হেগের আন্তর্জাতিক আদালতে। সোমবার শুনানি পর্বে অবসরপ্রাপ্ত ভারতীয় নৌ আধিকারিক কুলভূষণ যাদবের একটি তথাকথিত স্বীকারোক্তিমূলক ভিডিও দেখাতে দিল না আদালত। পাকিস্তানের বরাবরের বক্তব্য, নাশকতা চালাতেই ভারতের তরফে সে দেশে পাঠানো হয়েছিল কুলভূষণকে, এবং উত্তেজনাপ্রবণ বালুচিস্তান প্রদেশ থেকেই তাঁকে গ্রেফতার করে পাক ফৌজ। পরে কুলভূষণ যাদব নাকি কবুলও করেন যে তিনি ভারতের চর হিসাবেই পাকিস্তানে গিয়েছিলেন। তাঁর ওই তথাকথিত স্বীকারোক্তিমূলক ভিডিওটিই এদিন পিস প্যালেসের আদালত কক্ষে শোনাতে ও দেখাতে চান পাক প্রতিনিধি। কিন্তু আদালতের ১১ সদস্যের বেঞ্চ ওই ভিডিও দেখানো থেকে বিরত থাকতে বলে পাকিস্তানের প্রতিনিধিকে। দিল্লিতে ভারতীয় দূতাবাসের তরফে সোমবার সন্ধ্যায় বিষয়টি জানানো হয়।
photo_verybig_166314আন্তর্জাতিক বিচারালয়ে (‌আইসিজে)‌ কুলভূষণ যাদবের মৃত্যুদণ্ড রদ করা নিয়ে নিজেদের বক্তব্যে ভারত প্রথমেই পরিষ্কার করে জানিয়েছে, গোপনে কুলভূষণের শুনানি চলেছে সেনা আদালতে। আর সেই সেনা আদালতই কুলভূষণকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে। তাই ভিয়েনা সম্মেলনের চুক্তির পরিপন্থী এই পাক সিদ্ধান্ত। প্রথমত, বারবার আবেদন করা সত্ত্বেও কুলভূষণের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়নি ভারতীয় দূতাবাসকে। দ্বিতীয়ত, কুলভূষণের সঙ্গে দেখা করার জন্য তাঁর পরিবারকে ভিসা দেয়নি পাকিস্তান। ভারতের হয়ে সওয়াল শুরু করেন সহ–এজেন্ট ভিডি শর্মা। এরপরেই যুক্তি তুলে ধরেন আইনজীবী হরিশ সালভে। তিনি সরাসরি যাদবের মৃত্যুদণ্ড রদের দাবি করেন। তাঁর কথায়, যাদবের বিরুদ্ধে পাকিস্তান যে চরবৃত্তির অভিযোগ করেছে তা ভিত্তিহীন। ভুলভাবে তাই প্রচার করে চলেছে। মানবিক সমস্ত অধিকার থেকে যাদবকে বঞ্চিত করা হয়েছে। তাঁর মানবাধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। সেনা হেফাজতে কুলভূষণের অবস্থা কেমন তা নিয়েও তথ্য দেওয়া হয়নি। ভারতের আরও আশঙ্কা, আন্তর্জাতিক বিচারালয়ে মামলার মীমাংসার আগেই তাঁকে ফাঁসি দিতে পারে পাকিস্তান।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY