ইন্ডাস্ট্রিতে ৪ বছর হয়ে গেছে, বুঝে গেছি কিভাবে প্ল্যান করতে হয়: ইমন চক্রবর্তী

'প্রাক্তনে'র জন্য এক মাসে তিন বার আমেরিকায় যাওয়া, সঙ্গে কলকাতার নানান প্রজেক্ট। এই ব্যস্ত সিডিউলের ফাঁকেই www.plusbangla.com –এর সঙ্গে খোলামেলা আড্ডায় গায়িকা ইমন চক্রবর্তী।

0
4611

প্লাস বাংলা: কেমন আছেন ইমন?

ইমন: (ক্লান্ত স্বরে) ভালো, আর আপনারা সব কেমন?

প্লাস বাংলা: সকলেই ভালো। খুব ক্লান্ত নাকি?

ইমন: ভোর পাঁচটায় উঠেছি। আমার বাড়িতে এসেছেন, বুঝতেই পারছেন শহর থেকে লিলুয়া অনেকটাই দূরে। এত দূরে থাকায় আমার কাজগুলো সত্যি খুব ক্লামজি হয়ে যায়। এখানে আমি আমার বাবার সঙ্গে থাকি। ২০১৪-তে মা মারা যান। তাই এখন বাবাকে ছেড়ে কলকাতায় সেলফিসের মতো থাকতে আমি পারবো না। দূরে থাকি কিন্তু ভালো থাকি। সারা দিনের কাজ সেরে যখন আমি আমার ছোট্টো ঠিকানায় আসি আমি অনেক শান্তি পাই। (বলেই দীর্ঘ নিশ্বাস)

প্লাস বাংলা: টলিপাড়ায় প্রায় সকলেই বলছেন ‘প্রাক্তন’ আপনার ভবিষ্যত গড়ে দিল। এটা কি আপনি ফিল করেণ?

IMAN_FEATURE_2ইমন: আমার জীবনে আজ পর্যন্ত কোনও কিছুই প্ল্যান করে হয় না। বলতে পারি ‘প্রাক্তণ’ আমাকে আলাদা করে এক পরিচিত দিয়েছে। তবে ‘প্রাক্তন’-এর মাধ্যমেই কিন্তু আমার পরিচিত হয়নি, ‘প্রাক্তনে’র আগেও কিন্তু লোকজন আমাকে চিনতো। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান গাইতাম, লোক গান গাইতাম, তবে ‘প্রাক্তনে’র পরে ওই সো কল্ড জায়গাটা বা কমার্শিয়ালি ইমন চক্রবর্তীকে আলাদা ভাবে অডিয়েন্স পেয়েছে। আমরা যারা গান গাই, তাঁরা প্রত্যেকেই নিজের গানকে বড় পর্দায় দেখতে চাই। পর্দায় দেখার একটা আলাদা অনুভূতি আছে, সেটা ‘প্রাক্তনে’র জন্যই সম্ভব হয়েছে। তবে আমি শুধু গানটা গেয়েছি অল ক্রেডিট গোজ টু অনুপম রায়।

প্লাস বাংলা: প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবে এবার তো কাজ শুরু করেই দিয়েছেন। আপনার প্রিয় প্লেব্যাক সিঙ্গার কে?

ইমন: হিন্দি বাংলা সব মিলিয়ে এখন আমি যার গান সব সময় শুনি, তিনি হলেন অরিজিৎ সিং। আমি তাঁর জন্য পাগল, তাঁর গানের জন্য পাগল। তাঁর সঙ্গে আমার কোনও দিন দেখা হয় নি, কিন্তু এতটুকু বলতে পারি যে উনি মিউজিকালি এতো এনরিচড এক জন মানুষ, তাই আমি তার গানের ফ্যান। (বলেই হাসি) আর ফিমেল সিঙ্গারদের মধ্যে শ্রেয়া ঘোষলের গান শুনতেও খুব ভালো লাগে।

প্লাস বাংলা: আচ্ছা যদি এরকম প্রপোসাল আসে যে একই দিনে প্রায় একই সময় দুটো মিটিং আছে, একটা শ্রেয়া ঘোষালের সঙ্গে আরেকটা অরিজিৎ সিং-এর সঙ্গে কো সিঙ্গার হিসেবে কাজের জন্য। কোনটা করবেন?

ইমন: গান গাইতে যে যখন বলবে আমি তখনই চলে যাব। সেটা শ্রেয়া ঘোষাল হোক আর অরিজিৎ সিং হোক বা যেই হোক না কেন। আর এরকম সিচুয়েসন এলে যদি দুটোই করা যায় তাহলে দুটোই..(হাসতে হাসতে) তবে আমি তো অরিজিৎ সিং কে নিয়ে একটু বায়াসড তাই তাঁর কাজটাই করবো।(বলেই আবার হাসি)

IMAN_1প্লাস বাংলা:  আর যদি এমন হয় যে একই দিনে দুটি কাজের মিটিং একটা রবীন্দ্রসঙ্গীতের অ্যালবাম নিয়ে আর একটা ছবিতে প্লেব্যাক নিয়ে। তাহলে কোনটা বেছে নেবেন?

ইমন: ইন্ডাস্ট্রিতে ৪ বছর হয়ে গেছে, বুঝে গেছি কিভাবে প্ল্যান করতে হয়। কারন এটা একটা গেম প্ল্যান। আফটার অল এটা একটা গেমই। বুদ্ধি করে দুটোই করবো। আগে সিনেমার কাজটা সেরে নেব, তারপর রবীন্দ্রসঙ্গীতের অ্যালবামটাও করবো। এখন কোনও কিছু ছাড়ার আর সিন নেই। (হাসতে হাসতে)

প্লাস বাংলা: রিসেন্টলি আমেরিকা ঘুরে এলেন। সেখানে অডিয়েন্স কি বেশী শুনতে চাইলো রবীন্দ্রসঙ্গীত না প্রাক্তনের গান?

IMAN_4ইমন: হ্যাঁ, রিসেন্টলি আমেরিকা ঘুরে এলাম। ইনফ্যাক্ট এক মাসে তিন বার যেতে হল কারন ‘প্রাক্তনে’র প্রমোশন ছিল। লাস্ট টাইম গেলাম নর্থ আমেরিকান বেঙ্গলি ফেস্টিভেল-এ। সেখানে আমি বেশ ভালো প্রাক্তনের রেসপন্স পেলাম। ম্যাডিসন স্ক্যোয়ার গার্ডেনে যখন আমি স্টেজে উঠলাম, প্রায় দশ হাজার অডিয়ান্স ছিল, ওখানে আমাদের ফিল্ম ফেটারনিটি বা মিউজিক ফেটারনিটি বলুন, সকলেই ছিল। ওখানে ‘প্রাক্তনে’র এক সাংঘাতিক ক্রেজ দেখলাম। আমাকে টাইটেল ট্র্যাকটা গাইতে বলা হয়েছিল। আমি গেয়েছিলাম, ওটা ছিল জাস্ট ড্রিম ফর মি। তখন বুঝতে পারছিলাম যে, প্রাক্তন আমাকে আমার মুকুটে একটা পালক অবশ্যই দিয়েছে। (বলেই একটু থেমে…) আরও খারাপ একটা জিনিস হয়েছে জানেন, কয়েকদিন আগে এখানে একটা শ্রাদ্ধ বাড়িতে গিয়েছিলাম আর সেখানেও আমাকে কয়েকজন বললেন প্রাক্তনের গানটা বেশ হয়েছে। (বলেই মাথা নিচু করে হাসি..) তখনই আমার মনে হল আর যাই বলো সামহোয়ার গানটা বেশ হিট হয়েছে ভাই, না হলে শ্রাদ্ধ বাড়িতে কেউ গান শুনতে চাইতো না….

প্লাস বাংলা:  আপনার নেক্সট কি কি প্রজেক্ট আসছে?

ইমন: প্রত্যেক বছরই আমি পূজোতে এবং কবিপক্ষে অ্যালবাম করি। তবে এবছর আর করবো না। কারন সিডি এখন আর কেউ কেনেই না। একের পর এক সিডির আউটলেট গুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, তাই অ্যালবাম করার আর প্রশ্নই উঠছে না। আমি একটা সিঙ্গল করবো প্ল্যান করেছি। দেখা যাক। আর আরও একটা খবর হল আমি একটা ছবিতে অভিনয় করতে পারি। ছবির স্ক্রিপ্টটা ভালো। চরিত্রটা বেশ ভালো। অনেকেটা ইমন টাইপ। আর সেখানে আমি গানও গাইছি। গানের জন্যই এই প্রজেক্টটা আমার কাছে আরও ইন্টেরিস্টিং লেগেছে। যদি এই কাজটা করি তাহলে আশা করছি দর্শকদের ভালো লাগবে।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY