দাবদাহে রাঢ়বঙ্গ, গনগনে মধ্য ভারত

0
83

নিউজ ডেস্ক : তাপপ্রবাহ চলছে মধ্য ভারতের বিস্তীর্ণ এলাকায়। মধ্যপ্রদেশ, ছত্তীসগঢ়ের গরম বাতাস ঢোকায় তাপপ্রবাহের কবলে ঝাড়খণ্ডের সব শহর। ৫০ বছরে মার্চের তাপমাত্রায় রেকর্ড গড়েছে জামশেদপুর। মহারাষ্ট্রের ভিরা ইতিমধ্যেই বিশ্বের দ্বিতীয় উষ্ণতম হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।

1630মধ্য ভারতের তাপপ্রবাহই ঝাড়খণ্ড হয়ে ঢুকছে বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূম, জঙ্গলমহল ও বর্ধমানের শিল্পাঞ্চলে। এমনিতে সেই গরম বাতাসের চলে আসার কথা বর্ধমান, হুগলি, হাওড়া হয়ে কলকাতা ও দুই ২৪ পরগনার দিকে। কিন্তু এখনই সেটা হচ্ছে না। পশ্চিমাঞ্চল থেকে গরম বাতাসটা আটকে যাচ্ছে সমুদ্র থেকে ধেয়ে আসা জোলো বাতাসের দেওয়ালে। যার নাম দখিনা বাতাস। তার কাছে বাধা পেয়ে গরম হাওয়া মুখ ঘুরিয়ে চলে যেতে চাইছে যে দিক থেকে এসেছিল, সেই দিকে। কিন্তু মধ্যভারত থেকে ধেয়ে আসা গরম বাতাসের স্রোতে তা আর পিছোতেও পারছে না। গরম বাতাস জমে যাচ্ছে বাঁকুড়া-পুরুলিয়ার উপরেই। এবং জমে যাচ্ছে এক জায়গাতেই, আর সেখানে তাপমাত্রা চলে যাচ্ছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। বাঁকুড়া, পুরুলিয়ায় তাপমাত্রা ৪৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁই ছুঁই। এ দিকে কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকায় সকালে-রাতে কিছুটা আরাম দিচ্ছে দখিনা বাতাস। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা আটকে আছে ৩৪-৩৫ ডিগ্রিতে। বেলা বাড়লে অবশ্য বাতাসের জলীয় বাষ্প কলকাতাতেও অস্বস্তি বাড়িয়ে তুলছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY